এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন

এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন: বাংলা অক্ষর তথা বর্ণমালা আমাদের জাতীয় পরিচয়ের অবিনাশী সম্পদ। বাংলা বর্ণমালা বাঙালির প্রাণের সঙ্গে, অস্তিত্বের সঙ্গে মিশে আছে। বর্ণমালা অতন্দ্র প্রহরী হয়ে যেন পাহারা দিয়ে রাখছে আমাদের এই প্রিয় জন্মভূমিকে।

বাংলা অক্ষর বাঙালির চিত্তকে আনন্দে ভরিয়ে দেয়, বাঙালিকে করে তোলে স্বপ্নমুখী। বাংলা অক্ষর বাঙালির চোখে দেখা দেয় মায়ের রূপ ধরে। কখনো তার চিত্তে বাজায় সুখের নূপুর।

আমাদের অক্ষরসমূহ আপন-পর সবাইকে কাছে টানে, দূর করে দেয় সব ভেদ। বাংলা অক্ষরের শক্তিতে বলীয়ান হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে এ জাতি স্বাধীন করেছে তার মাতৃভূমি। ‘এই অক্ষরে’ কবিতাটিতে বাংলা অক্ষর তথা বর্ণমালার প্রতি কবির গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ পেয়েছে।


এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন 

প্রশ্ন ১। মহাদেব সাহা কত খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন?
উত্তর : ১৯৪৪ খ্রিস্টাব্দে।

প্রশ্ন ২। আকাশে নাম লিখে কারা পাহারা দিচ্ছে?
উত্তর : বাংলা অক্ষর।

প্রশ্ন ৩। কিসে আমাদের অন্তরে গান জাগে?
উত্তর : বাংলা অক্ষরে।

প্রশ্ন ৪। অজানা যা কিছু তা আমরা কার কাছ থেকে শিখি?
উত্তর : বাংলা অক্ষরের কাছ থেকে।

প্রশ্ন ৫। ‘এই অক্ষরে’ কবিতার বর্ণনা মতে কার স্পর্শে আনন্দে প্রাণ ভরে ওঠে?
উত্তর : বাংলা অক্ষরের।

প্রশ্ন ৬। বাংলা অক্ষরে কে সকাল-দুপুর সুরের নূপুর বাজায়?
উত্তর : বাংলার উদাস কবি।

প্রশ্ন ৭। বাংলা অক্ষরে স্বপ্নের মতো রূপকথা কী সৃষ্টি করে?
উত্তর : অন্তরে ঢেউ তোলে।

প্রশ্ন ৮। বাংলা অক্ষর আত্মীয়-পর-এর ক্ষেত্রে কী ভূমিকা পালন করে?
উত্তর : সবাইকে কাছে টানে।

প্রশ্ন ৯। কোনটি দিয়ে আমরা যুদ্ধ জয় করেছি?
উত্তর : বাংলা অক্ষরে গান লিখে নিয়ে।

প্রশ্ন ১০। ‘উপমা’ মানে কী?
উত্তর : তুলনা।

প্রশ্ন ১১। ভাষা আন্দোলন কখন হয়?
উত্তর : ১৯৫২ সালে।

প্রশ্ন ১২। বাংলা ভাষার অক্ষর কীভাবে ছুটে চলে?
উত্তর : ঝরনার মতো।

প্রশ্ন ১৩। কোনটি পেলে আমাদের মন নদী হয়ে যায়?
উত্তর : বাংলা অক্ষরে লেখা মায়ের চিঠি।

প্রশ্ন ১৪। বাঙালি জাতি মাতৃভূমিকে স্বাধীন করেছে কিসের টানে?
উত্তর : বাংলা ভাষার টানে।

প্রশ্ন ১৫। ‘এই অক্ষরে’ কবিতায় ‘অক্ষর’ বলতে কী বোঝানো হয়েছে?
উত্তর : বাংলা ভাষা ।

প্রশ্ন ১৬। বাঙালির প্রাণের সঙ্গে, অস্তিত্বের সঙ্গে কোনটি মিশে আছে?
উত্তর : বাংলা বর্ণমালা ।

প্রশ্ন ১৭। ‘এই গৃহ এই সন্ন্যাস’ গ্রন্থটি কে লিখেছেন?
উত্তর : মহাদেব সাহা ।

প্রশ্ন ১৮। ‘অস্তমিত কালের গৌরব’ গ্রন্থটির লেখক কে?
উত্তর : মহাদেব সাহা।

প্রশ্ন ১৯। ‘অক্ষরের যুদ্ধ’ বলতে কী বোঝায়?
উত্তর : ভাষা আন্দোলন।

প্রশ্ন ২০। নূপুর কী?
উত্তর : নূপুর হচ্ছে পায়ে পরার অলংকার।

প্রশ্ন ২১। ‘এই অক্ষরে’ কবিতাটি পাঠের উদ্দেশ্য কী?
উত্তর : মাতৃভাষার প্রতি শিক্ষার্থীদের শ্রদ্ধা ও মমত্ববোধ জাগ্রত করা।

প্রশ্ন ২২। কোনগুলি চায় মুখ তুলি?
উত্তর : অক্ষরগুলি চায় মুখ তুলি।

প্রশ্ন ২৩। এই অক্ষরে কাকে মনে পড়ে?
উত্তর : এই অক্ষরে মাকে মনে পড়ে।


আশাকরি আমাদের আজকের আর্টিকেল টি আপনাদের ভালো লেগেছে। শিক্ষা, পাঠ্যপুস্তক, গল্পের বই সহ যে কোন পিডিএফ ডাউনলোড করতে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের যে কোন আপডেট মিস করতে না চাইলে ফেসবুক ও ইউটিউবে সাবক্রাইব করে আমাদেস দাথে কানেক্ট থাকতে পারেন। ভালো থাকবেন সবাই, ধন্যবাদ।

এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন এই অক্ষরে কবিতার জ্ঞানমূলক প্রশ্ন